দেখে নিন ওয়ার্ডপ্রেস কনফিগারেশনের প্রয়োজনীয় কিছু টিপস।

ওয়ার্ডপ্রেস এর wp-config.php ফাইলে পরিবর্তনের মাধ্যমে ওয়ার্ডপ্রেস এর অনেক জটিল কাজকে খুব সহজ করে সম্পন্ন করা যায়। এমনকি সিকিউরিটি এর ক্ষেত্রেও এর যথেষ্ট অবদান রয়েছে। আজ আমরা সে বিষয়েই কিছু জানব।

টিপস ১ – ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কাজ করার সময় আমরা মাঝে মাঝে একটি সমস্যায় পড়ি সেটি হল ওয়ার্ডপ্রেস এর রিপোজিটরি থেকে কিছু ইন্সটল করতে গেলে আমাদের এফ টি পি এর লগিন চেয়ে বসে। এ সমস্যা থেকে পরিত্রান পেতে আমরা ওয়ার্ডপ্রেস এর wp-config.php তে নিচের কোডটি ব্যবহার করতে পারি।

define(‘FS_METHOD’, ‘direct’);

টিপস ২ – আমরা জানি ওয়ার্ডপ্রেস এর এডমিন প্যানেল থেকে থীম এবং প্লাগিন এর পরিবর্তন সংরক্ষন করা যায় কিন্তু অনেক সময় এটাই আমাদের বিপদের কারণ হয়ে যায়। যখন কোন হ্যাকার কোনভাবে আপনার এডমিন এ ঢুকে পড়ে তখন এর সাহায্যে সে খুব সহজেই থীম ও প্লাগিন এ পরিবর্তন করে ফেলতে পারে। তাই সেক্ষেত্রে এই অপশনটিকে ডিজেবল করে রাখাই আমার মতে যথার্থ। এই কাজটি করার জন্য কনফিগ ফাইলে নিচের কোডটি যুক্ত করুন।

define(‘DISALLOW_FILE_EDIT’, 1);

টিপস ৩ – ওয়ার্ডপ্রেস এ ডিফল্টভাবে যেকোন কিছু আপ্লোড করলে তা wp-content/uploads ফোল্ডারে সংরক্ষিত হয়। কিন্তু আমরা খুব সহজেই এটি পরিবর্তন করতে পারি। এজন্য কনফিগারেশন ফাইলে নিচের কোডটি যুক্ত করুনঃ

define(‘UPLOADS’, ‘name of the direcory’);

টিপস ৪ – বিভিন্ন সময়ে আমাদের ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের ডাটাবেস অপটিমাইজ করতে হয়। আর সেজন্য ওয়ার্ডপ্রেস ২.৯ থেকে ডিফল্টভাবে এই সিস্টেমটি যুক্ত করা হয়েছে। এজন্য আপনাকে কনফিগ ফাইলে নিচের কোডটি লিখে তা রান করাতে হবে। তবে কাজ শেষে এই পারমিশনটি আবার বন্ধ করে রাখা উত্তম।

define(‘WP_ALLOW_REPAIR’, true);

টিপস ৫ – অনেক সময়ে ওয়ার্ডপ্রেস এ কাজ করার সময় কোন এরর এর কারণে সাইট ব্লাংক দেখাতে পারে। তখন এরর চেক করার জন্য wp-config.php তে গিয়ে নিচের কোডটি যুক্ত করলে আমরা সেই এরর সম্পর্কে জানতে পারব এবং সমাধানের চেষ্টা করতে পারব।

define(‘WP_DEBUG’, 1);

টিপস ৬ – ওয়ার্ডপ্রেস এ পোষ্ট করার সময় বা সম্পাদনের সময় প্রতিবার ডাটাবেসে সেই পোষ্টের রিভিশন করা হয় যা অনেক সময় ডাটাবেস ভারী করে ফেলে এবং স্পিড অনেক সময় কমিয়ে ফেলে। অন্যদিকে পোষ্ট করার সময় ওয়ার্ডপ্রেস তা কিছুক্ষন পর পর সেভ করে রাখে যাতে আমরা এর প্রিভিও দেখতে পারি।কিন্তু এতেও কিছুটা সমস্যা হতে পারে তাই এটি কিছুটা বিলম্বিত করে রাখা উত্তম।তাই খুব প্রয়োজন না পড়লে এসকল ফিচার বন্ধ করে রাখাই উত্তম। এজন্য ওয়ার্ডপ্রেস এর কনফিগারেশনে গিয়ে নিচের কোডটি লিখে সেভ করতে হবে।

define(‘WP_POST_REVISIONS’, false );
define(‘AUTOSAVE_INTERVAL’, 300 );

এখানে আমরা অটোসেভ কে ৫ মিনিটের জন্য বিলম্বিত করেছি। আপনি চাইলে তা আরো বাড়িয়ে নিতে পারেন।
ধন্যবাদ সবাইকে।

Add a Comment