যে কারণে বাংলা ব্লগে আপনি এডসেন্স পাচ্ছেন না বা পাবেন না।

আমরা বাংলা ভাষা ভাষী মানুষ তাই স্বভাবতই বাংলা ভায়ায় ব্লগিং করা আমাদের কাছে অনেক সহজ ব্যাপার। বাংলা ভাষাতে আমরা সহজেই মনের ভাব প্রকাশ করে অন্যকে সেটা বোঝাতে পারি। তাই আমরা যারা বাঙ্গালী তারা চাই বাংলাতেই ব্লগিং করতে। অবশ্য বর্তমানে অনেক বাঙ্গালী ইংরেজী ভাষাতেও ব্লগিং করে প্রচুর অর্থ কামাচ্ছে, তাদের বিষয় আমি বলতে চাচ্ছি না। যাইহোক অধিকাংশ বাংলা ভাষা ভাষী ব্লগার বাংলাতে ব্লগিং করছেন এবং এডসেন্স পেয়ে ইনকামও করছেন। সমস্যা হচ্ছে অধিকাংশ বাংলা ব্লগ গুগল এডসেন্স পাচ্ছেন না। এই এডসেন্স না পাওয়ার অনেক গুলো কারণ আছে সেখান থেকে আমি আজ আপনাদের সাথে কিছু অধিক গুরুত্বপূর্ণ কারণ নিয়ে আলোচনা করব। তবে চলুন শুরু করি কেন আপনি বাংলা ব্লগে গুগল এডসেন্স পাচ্ছেন না:

১। আপনার ব্লগে যথেষ্ট পরিমাণ আর্টিকেল নেইঃ আমরা অনেকেই ব্লগ তৈরী করে ২/৪ টা পোষ্ট করে এডসেন্স এর জন্য আবেদন করি এর ফলে যেটা হবার তাই হয়, এডসেন্স এপ্রুভ হয় না। মনে রাখবেন এডসেন্স পেতে হলে আপনাকে প্রচুর পরিমাণ আর্টিকেল লিখতে হবে। মোট কথা ভিজিটর আপনার ব্লগে আসবে আর্টিকেল পড়তে তাই আপনার ব্লগে যথেষ্ট পরিমাণে আর্টিকেল থাকতে হবে।

২। হতে পারে আপনার ব্লগে ভালো আর্টিকেল নেইঃ আপনার ব্লগে যথেষ্ট পরিমাণে আর্টিকেল থাকার পরেও যদি আপনার ব্লগের আর্টিকেলের বিষয় এবং বিষয়বস্তুর মধ্যে পরিপূর্ণতা না থাকে অথবা আপনি যে বিষয় নিয়ে শুরু করেছেন সেটা শেষ পর্যন্ত সাবলীল ভাবে প্রকাশ করতে পারলেন না তাহলেও আপনি আপনার ব্লগের জন্য এডসেন্স পাবেন না। মনে রাখবেন আপনার ব্লগের আর্টিকেল গুলোর মান কেমন তা গুগলের চেয়ে আর কেউ ভারো জানে না।

৩। আপনার ব্লগের লে-আউট/ডিজাইন ভালো নাঃ একজন ভিজিটর কে আকর্ষন করে একাধিকবার আপনার ব্লগে নিয়ে আসার জন্য যেমন মানসম্মত আর্টিকেল দরকার তেমন আপনার ব্লগের লে-আউট/ডিজাইনও খুবই গুরুত্বপূর্ন। আর এই বিষয়টা খেয়াল করে গুগল আপনার ব্লগের জন্য এডসেন্স এপ্রুভ করবে।

৪। রেসপন্সিভনেসঃ বর্তমানে কম্পিউটারের পাশাপাশি অধিকাংশ ইউজার বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ব্লগ ভিজিট করে তাদের স্মার্টফোট, ট্যাবলেট এবং অন্যান্য ডিভাইসের মাধ্যমে আবার এই ডিভাইসগুলোর ডিসপ্লে সাইজ আলাদা আলাদা। তাই আপনার ওয়েব সাইট যদি সকল ডিভাইসে রেসপন্স না করে তাহলে ইউজার বা ভিজিটর আপনার ব্লগ ভিজিট করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করবে না। আর এই বিষয় টা লক্ষ করে গুগল আপনার এডসেন্স আবেদন নাকোচ করে দিতে পারে।

৫। গুগলে ব্লগ ইনডেক্সঃ আপনার ব্লগ গুগলে ইনডেক্স মানে হল, আপনার ব্লগের আর্টিকেল লিংক, ট্যাগ লিংক সহ বিভিন্ন প্রকার লিংক গুগল কর্তৃক ইনডেক্সড থাকতে হবে। আর এজন্য আপনার ব্লগ গুগল ওয়েবমাষ্টার এ সাবমিটেড থাকতে হবে এবং ভেরিভাইড হতে হবে। যেন গুগল সার্চ বক্সে আপনার ব্লগের কোন কিছু লিখে সার্চ করলে ইউজাররা খুজে পেতে পারে।

৬। স্প্যাম ব্যাকলিংক তৈরী করেছেনঃ ব্যাকলিংক হল আপনার ব্লগের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যথেষ্ট ব্যাকলিংক থাকলে আপনার ব্লগ দ্রুত গুগলে ইনডেক্স হবে এবং আপনার ব্লগের জন্য এডসেন্স পাওয়াও খুব সহজ হবে। কিন্তু আপনি যদি স্প্যাম করে ব্যাকলিংক করেন সে ক্ষেত্রে আপনার লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হবে। মনে করেন, আপনি কোন একটা ব্লগে ঢুকলেন বা যে কোন একটি ওয়েবসাইটে ঢুকে মন্তব্যের ঘরে সুযোগ পেয়েই একটা লিংক দিয়ে আসলেন যেটা কোন প্রাসঙ্গিক আর্টিকেল না সেটাই হল স্প্যাম ব্যাকলিংক। ব্যাকলিংক যদি করতেই হয় আপনি অন্য কোন ব্লগে আপনার পোষ্টের বা আর্টিকেলের সাথে সাদৃশ্য রেখে অন্য কোন ব্লগে গেষ্ট হিসেবে আর্টিকেল লিখুন এবং সেখানে একটি ব্যাকলিংক করুন।

৭। পাইরেসিঃ পাইরেসি মানে হল, মনে করেন আপনি কোন একটি সফটওয়ার নিয়ে আর্টিকেল লিখছেন আর এই আর্টিকেল লেখার মাঝে কিভাবে ঐ সফটওয়ারের পেইড ভার্সন ফ্রিতে পাওয়া যায় সেটি নিয়ে আলোচনা করলেন বা পেইড ভার্সন আপলোড করে তার লিংক দিয়ে দিলেন এটিই পাইরেসি। পাইরেসি একটা বড় ধরনের অপরাধ। গুগল এডসেন্স পেতে হলে আপনাকে পাইরেসি ফ্রি আর্টিকেল পাবলিশ করতে হবে।

উপরের বিষয়গুলো এড়িয়ে চললে আশাকরি আপনি আপনার বাংলা ব্লগের জন্যও গুগল এডসেন্স পেয়ে যাবেন ইনশা আল্লাহ।

পরবর্তী পোষ্টে আলোচনা করা হবে, কিভাবে এডসেন্স পাওয়ার পরও হারিয়ে ফেলতে পারেন বা এড লিমিটে পড়তে পারেন। সেই পর্যন্ত সবাই সুস্থ থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

Add a Comment